ডেস্ক : করোনাভাইরাসে মারা যাওয়া ১০ হাজার মরদেহ পোড়ানো হয়েছে চীনে এমন খবর নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে খবর প্রকাশ হয়েছে তা সত্য নয়। এমন দাবি করেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক ফ্যাক্ট চেকিং সংস্থা ফুলফ্যাক্ট ডটওআরজি।

সংস্থাটি জানায়, যেই স্যাটেলাইট ছবির বরাতে গণমাধ্যমগুলো মৃতদেহ পোড়ানোর খবর প্রকাশ করেছে সেই ছবিটিই ভুল। কারণ প্রথমত, ছবিটি স্যাটেলাইটের নয়। দ্বিতীয়ত, ছবিটি আবহাওয়া সংক্রান্ত সাধারণ পূর্বাভাস প্রকাশে ব্যবহার করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসাও একই কথা বলছে। তাদের মতে, ছবিতে দেখানো হয়েছে আবহাওয়ার পূর্বাভাস ও সালফার ডাই–অক্সাইড নির্গমন সংক্রান্ত তথ্য।

ফুলফ্যাক্টের দাবি, বিভিন্ন গণমাধ্যম যে ছবিটি ব্যবহার করেছে তা আবহাওয়ার পূর্বাভাস সংক্রান্ত ওয়েবসাইট উইন্ডি ডটকম থেকে নেওয়া। আবহাওয়া ছাড়াও ওয়েবসাইটটি বাতাসে বিভিন্ন দূষণকারী পদার্থ যেমন- নাইট্রোজেন ডাই–অক্সাইড এবং সালফার ডাই–অক্সাইডের উপস্থিতি নিয়ে পূর্বাভাস দেয়। ওই ছবিটি মূলত উহান এলাকার তিন দিনের বাতাসের পূর্বাভাস। যেহেতু পূর্বাভাসের কথা বলা হয়েছে, তাই বাস্তবের সঙ্গে এর কোনো মিল নেই।

অথচ এই ছবির ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন গণমাধ্যম জানিয়েছিল, চীনের কয়েকটি অঞ্চলের স্যাটেলাইট চিত্রে দেখা গেছে অতিরিক্ত সালফার ডাই-অক্সাইডের উপস্থিতি। মানবদেহ পোড়ালে বাতাসে অতিরিক্ত সালফার ডাই-অক্সাইড থাকে। উহানে হয়তো তাই করা হয়েছে। ছবিতে যে পরিমাণ সালফার ডাই-অক্সাইডের উপস্থিতি দেখানো হয়েছে তা উৎপাদনে অন্তত ১০ হাজার মৃতদেহ পোড়ানো হয়েছে বলে দাবি করা হয় প্রতিবেদনে।